স্বামীকে চলন্ত বাস থেকে ফেলে স্ত্রীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ

title
৯ দিন আগে
গাজীপুরের শ্রীপুরে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে যাত্রীবাহী চলন্ত বাসে এক নারী সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার হয়েছেন। শুক্রবার রাত ২টার দিকে তাকাওয়া পরিবহনের একটি বাসে এ ঘটনা ঘটে। অভিযোগ পেয়ে গাজীপুর গোয়েন্দা ও থানা পুলিশ গতকাল শনিবার রাতে অভিযান চালিয়ে এ ঘটনায় জড়িত পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করেছে। জব্দ করা হয়েছে বাসটিও। বিজ্ঞাপন গাজীপুর জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সানোয়ার হোসেন জানান, এক দম্পতি বাসে নওগাঁ থেকে এসে মহানগরীর ভোগড়ায় নামেন। সেখান থেকে শ্রীপুরের মাওনা চৌরাস্তায় যাওয়ার জন্য গাজীপুরের তাকওয়া পরিবহনের একটি বাসে ওঠেন তারা। বাসটি মাওনা এলাকায় পৌঁছলে চালক-হেলপারসহ অন্য সহযোগীরা ওই নারীকে আটকে রেখে তার স্বামীকে ধাক্কা দিয়ে বাস থেকে ফেলে দেয়। পরে বাসটি ঘুরিয়ে চালক বেপরোয়া গতিতে ফের গাজীপুরের দিকে চালাতে থাকে। ওই সময় চলন্ত বাসে চালক ও হেলপারসহ অন্য সহযোগীরা ওই নারীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ করে। একপর্যায়ে ওই নারীর ব্যাগ ও নগদ টাকা রেখে দিয়ে হোতাপাড়ায় একটি নির্জন স্থানে তাকে ফেলে রেখে বাসটি নিয়ে তারা পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় নির্যাতনের শিকার নারীর স্বামী বাদী হয়ে গতকাল শ্রীপুর থানায় মামলা দায়ের করেন। সানোয়ার হোসেন আরো জানান, মামলার পরই জেলা পুলিশের একাধিক দল বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে ধর্ষণের ঘটনায় জড়িত পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করেছে। একই সঙ্গে লুণ্ঠিত ব্যাগসহ নগদ টাকা উদ্ধার করা হয়েছে। নির্যাতনের শিকার নারীর ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। জানা গেছে, স্বামী-স্ত্রী দুজনই পোশাক কারখানার শ্রমিক। ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার স্কয়ার মাস্টারবাড়ি এলাকার একটি পোশাক কারখানায় কাজ করেন তারা।