টাঙ্গাইলে স্কুলছাত্র হত্যার ঘটনায় ৬ শিক্ষকের বিরুদ্ধে মামলা

title
২ মাস আগে
টাঙ্গাইলে সৃষ্টি স্কুলের আবাসিকে পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থী শিহাব মিয়ার (১১) মৃত্যুর ঘটনায় ছয় শিক্ষকের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। গতকাল সোমবার (২৭ জুন) রাতে শিহাবের মা আছমা আক্তার বাদী হয়ে টাঙ্গাইল সদর থানায় মামলাটি দায়ের করেন। টাঙ্গাইল সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর মোশারফ হোসেন বলেন, মৃত শিহাবের মা বাদী হয়ে ছয় শিক্ষকের নাম উল্লেখ করে এবং আরোসাত থেকে আটজন অজ্ঞাত ব্যক্তির বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন। তদন্তের স্বার্থে আসামিদের নাম আপাতত বলা যাচ্ছে না। বিজ্ঞাপন এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আবুবকর নামের এক শিক্ষককে আটক করা হয়েছে। এদিকে, তার মরদেহ উদ্ধারের পর রবিবার (২৬ জুন) ময়নাতদন্তের প্রতিবেদনে বলা হয়, তাকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে। এর আগে গত ২০ জুন শহরের সুপারিবাগান এলাকায় সৃষ্টি একাডেমিক স্কুলের আবাসিক ভবনের সাততলা থেকে শিহাব মিয়ার লাশ উদ্ধার করা হয়। মৃত শিহাব জেলার সখীপুর উপজেলার বেরবাড়ি গ্রামের প্রবাসী ইলিয়াস হোসেনের ছেলে। শুরু থেকেই শিশুটিকে হত্যার অভিযোগ তুলে আসছিল তার পরিবার। পরে লাশ ময়নাতদন্ত শেষে পারিবারের কাছে হস্তান্তর করে পুলিশ। এ ঘটনায় প্রাথমিক পর্যায়ে টাঙ্গাইল সদর থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন প্রকাশের পর রবিবার বিকেলে র্যাব সাতজন শিক্ষক ও পুলিশ দুজন শিক্ষককে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে। পরে র্যাব তাদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ কোনো তথ্য না পাওয়ায় তাদের সাতজনকে ছেড়ে দেয়। আর পুলিশ দুজনের মধ্যে থেকে একজনকে ছেড়ে দিয়েছে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছে। শিহাব হত্যার বিচারের দাবিতে ফুঁসে উঠেছে সাধারণ শিক্ষার্থীরা। বিভিন্ন সচেতন মহল থেকে জানানো হচ্ছেতীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ। টাঙ্গাইল ও ঢাকায় করা হচ্ছে মানববন্ধন, সমাবেশ ও দেওয়া হয়েছে স্মারকলিপি। টাঙ্গাইলের পুলিশ সুপার সরকার মোহাম্মদ কায়সার বলেন, তদন্ত করে অপরাধীদের বিচারের আওতায় আনা হবে।