\'বাবা বলেছেন, কেন তুমি গোল করতে পারোনি?\'

title
১২ দিন আগে
ম্যানচেস্টার সিটির জার্সিতে প্রথমবার প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচ খেলতে নেমেই নিজের ছায়া হয়ে ছিলেন আর্লিং হালান্ড। কমিউনিটি শিল্ডের ফাইনালে লিভারপুলের বিপক্ষের নিজের সামর্থ্যের প্রমাণ রাখতে পারেননি তিনি। ফাইনাল ম্যাচের শেষ দিকে ফাঁকা পোস্ট পেয়েও গোল করতে পারেনি হালান্ড। সেই ম্যাচ শেষেই বাবা আর্লফ হালান্ড ছেলেকে ক্ষুদে বার্তা দিয়ে জিজ্ঞেস করে, কেনো তুমি গোল করতে পারোনি? পেপ গার্দিওলা চেয়েছিলেন এমন একজনকে যে প্রতিপক্ষের ডি-বক্সে ভীতি ছড়াবে। বিজ্ঞাপন প্রয়োজনে এনে দেবে গোল। যে কারণে বরুশিয়া ডর্টমুন্ড থেকে উড়িয়ে আনেন হালান্ডকে। গত মৌসুমে গ্যাব্রিয়েল জেসুস, রাহিম স্টার্লিং, রিয়াদ মাহারেজ, ফিল ফোডেনরা আক্রমণভাগের দায়িত্ব সামলালেও পাকা শিকারির মতো গোল এনে দিতে পারেননি। তাই প্রিমিয়ার লিগ জিতলেও চ্যাম্পিয়নস লিগ জয়ের স্বপ্ন পূরণ হয়নি ইংলিশ ক্লাবটির। ম্যানচেস্টার সিটির হয়ে এ সপ্তাহেই প্রিমিয়ার লিগে অভিষেক হবে হালান্ডের। এর আগে ইংলিশ গণমাধ্যম বিবিসিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে হালান্ড জানিয়েছেন নিজের লক্ষ্যের কথা। ২২ বছর বয়সী হালান্ড বলেছেন,আমি চ্যাম্পিয়নস লিগ জয়ের স্বপ্ন দেখি। এখানে খেলা অবশ্যই চাপ আছে-আমি চ্যাম্পিয়নদের হয়ে খেলছি। যতটা সম্ভব হাসিমুখে খেলাটি উপভোগ করার চেষ্টা করব কারণ জীবন দ্রুত এগিয়ে যায় এবং হঠাৎ আপনার ক্যারিয়ার শেষ হয়ে যেতে পারে। বিবিসিকে হালান্ড জানিয়েছেন কমিউনিটি শিল্ডের ফাইনালের পরে তাঁর বাবা তাকে এমন বার্তা দিয়েছিল যে,তুমি গোল করতে পারোনি কেন? আমি অ্যানফিল্ডে আগে গোল করেছি তাই এখানে তোমার চেয়ে আমার বেশি গোল আছে। লিভারপুলের বিপক্ষে গোলের সুযোগ নষ্ট করার পর সে রাতে ঠিকমত ঘুমাতে পারেননি হালান্ড। তবে এই ভুল থেকেই সামনে ভাল করার প্রেরণা পাচ্ছেন হালান্ড। হালান্ডের চোখে সবচেয়ে কঠিন লিগ হচ্ছে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ। এটার ব্যাখ্যা সে এভাবে দিয়েছেন,এটি সত্যিই একটি শরীরভিত্তিক লিগ, এখানকার গতি আশ্চর্যজনক, এটি এমন কিছু যা আমি পছন্দ করি। এটা নিশ্চিতভাবে কঠিন হতে চলেছে কিন্তু আমি অনুভব করি আমি প্রস্তুত, আমার শরীর প্রস্তুত। একটি ভালোদ্বন্দ্ব, সব সময় সুন্দর।