ত্রিপুরার উপনির্বাচনে বিজেপিকে সুবিধা দেওয়ার অভিযোগ

title
৪ দিন আগে
ভারতের ত্রিপুরায় বিশৃঙ্খল পরিবেশে চার বিধানসভা আসনে ভোটগ্রহণ হয়েছে বৃহস্পতিবার। নির্ধারিত সময় শেষে ভোট পড়েছে প্রায় ৭৭ শতাংশ। এই নির্বাচনে ক্ষমতাসীন বিজেপিকে সুবিধা দেওয়ার অভিযোগ করেছে বিরোধীরা। উপনির্বাচনটি ছিল ত্রিপুরার বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী মানিক সাহার জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। বিজ্ঞাপন কারণ প্রথমবার তিনি সরাসরি নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন। কেন্দ্রে ভুয়া ভোটারের উপস্থিতি এবং কোথাও ভোট দিতে বাধা দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এক কেন্দ্রে পুলিশকর্মী ভোট দিতে গেলে তাকে ছুরিকাঘাত করা হয়। এ ছাড়া এক সাংবাদিককেও হেনস্তা করা হয়। সকালে আগরতলা আসনের কুঞ্জবন এলাকায় ভোট দিতে যান পুলিশকর্মী সমীর সাহা। রক্তাক্ত অবস্থায় গণমাধ্যমকে তিনি বলেন, পরিবারের সঙ্গে ভোট দিতে যাচ্ছিলাম। বিজেপির গুণ্ডারা আমার পথ আটকায়। ওরা বলে যেআমার ভোট নেই। প্রতিবাদ করায় আমার হাতে ছুরি মারা হয়। পরে পেটে কোপ মারে। নির্বাচন কমিশন ঘটনাগুলোকে বিচ্ছিন্ন আখ্যা দিয়ে সুষ্ঠু নির্বাচন হওয়ার দাবি করেছে। তবে তৃণমূল, সিপিএম এবং কংগ্রেসের দাবি, ক্ষমতাসীন বিজেপির চাপে নিশ্চুপ ছিল নির্বাচন কমিশন। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অভিযোগ করে বলেন, ত্রিপুরার ভোটে বিজেপির নেতৃত্বে অত্যাচার চলেছে। ত্রিপুরায় চার বিধানসভা আসনে উপনির্বাচন হয়েছে দুই বিধায়কের পদত্যাগ, এক বিধায়কের অযোগ্য হওয়া এবং আরেক বিধায়কের মৃত্যুর কারণে। ত্রিপুরা ছাড়াও বৃহস্পতিবার উপনির্বাচনের ভোট হয়েছে অন্ধ্রপ্রদেশ, দিল্লি এবং ঝাড়খণ্ডের একটি করে বিধানসভা আসনে। এ ছাড়া পাঞ্জাবের একটি এবং উত্তরপ্রদেশের দুটি লোকসভা আসনে উপনির্বাচন হয়েছে। সব আসনের ভোট গণনা হবে ২৬ জুন। সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা ও টাইমস অব ইন্ডিয়া।