বাবার ওপর অভিমান করে কীটনাশক খেয়ে শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা

title
এক মাস আগে
জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে প্রেমিকের সঙ্গে বিয়ে না দেওয়ায় বাবার ওপর অভিমান করে এক শিক্ষার্থীর আত্মহত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। মঙ্গলবার (২৪ মে) সন্ধ্যায় উপজেলার পোগলদিঘা ইউনিয়নের মালিপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। জানা গেছে, নিহত শিক্ষার্থীর নাম ফাতেমা আক্তার (১৭)। ফাতেমা পোগলদিঘা ইউনিয়নের পূর্ব মালিপাড়া গ্রামের কৃষক মোকাদ্দেস আলীর মেয়ে ও পাশ্ববর্তী বামনজানি কলেজের একাদশ শ্রেণীর শিক্ষার্থী। বিজ্ঞাপন পোগলদিঘা ৩ নং ওয়ার্ডের ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য কহিনুর রহমান বলেন, নিহত ফাতেমা মালিপাড়া গ্রামের কৃষক মোকাদ্দেস আলীর একমাত্র মেয়ে। একই গ্রামের ইব্রাহীম মিয়ার ছেলে হৃদয়ে মিয়ার সঙ্গে ফাতেমার প্রেমের সম্পর্ক হয়। গত কয়েকদিন আগে হৃদয় মিয়ার পরিবার ফাতেমার বাবার কাছে বিয়ের প্রস্তাব নিয়ে যায়। এতে মোকাদ্দেস আলী মেয়ের বিয়ে নাকচ করে মেয়েকে মারধর করতে থাকে। একপর্যায়ে ফাতেমা মারধর সইতে না পেয়ে ও প্রেমিকার সঙ্গে বিয়ে না দেওয়ায় বাবার ওপর অভিমান করে ঘরে থাকা কীটনাশক পান করে। এতে সে অসুস্থ হয়ে পড়লে পরিবারের লোকজন প্রথমে তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। পরে তার অবস্থা অবনতি দেখা দিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য জামালপুর সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন। সদর হাসপাতালে নেওয়ার পথে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় তার মৃত্যু হয়। পুলিশ খবর পেয়ে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নিয়ে যায়। এ ব্যাপারে তারাকান্দি পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ আব্দুল লতিফ বলেন, মারধরের কারণে বাবার ওপর অভিমান করে কীটনাশক খেয়ে তার মৃত্যু হয়। পুলিশ লাশ উদ্ধার করেছে। বুধবার (২৫ মে) সকালে ময়নাতদন্তের জন্য জেলা মর্গে প্রেরণ করা হবে।