সড়ক দুর্ঘটনায় নেত্রকোনার পূর্বধলায় ট্রাকের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষে মোটর সাইকেল আরোহী নিহত

title
২ মাস আগে
গতরাত ৯টার দিকে উপজেলার শ্যামগঞ্জ এলাকায় এই দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত লাখ মিয়া উপজেলার মহিষবেড় গ্রামের বাসিন্দা। পূর্বধলা থানার ওসি সাইফুল ইসলাম জানান, দ্রুতগামী একটি ট্রাক শ্যামগঞ্জ থেকে দুর্গাপুরে যাওয়ার পথে বিপরীত দিক থেকে আসা মোটরসাইকেলের সংগে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই মোটরসাইকেল আরোহী নিহত হন। এছাড়া পাবনা সদর উপজেলার চক-দুবলিয়ায় এলাকায় ইটের গুড়া বোঝাই ইঞ্জিন চালিত ভটভটি উল্টে শাকিল নামে একজন নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয় আরও দুজন। পুলিশ জানায়, নিহত শাকিল দোগাছির মুনিবপুর গ্রামের বাসিন্দা। আহত ভটভটির চালক ও সহযোগীকে উদ্ধার করে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। জামালপুরে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে স্যানেটারি মিস্ত্রীকে হত্যার প্রতিবাদে ও দোষীদের শাস্তির দাবীতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন ঘোড়াধাপ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গোলাম কিবরিয়া, বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম, খোরশেদ আলম, নিহতের স্ত্রী শম্পা খাতুন প্রমুখ। এ সময় বক্তারা বলেন, ঘোড়াধাপ এলাকার স্যানেটারি মিস্ত্রী আব্দুর রাজ্জাকের জমি জোর করে দখল করার জন্য ভূমিদস্যু মঞ্জু তার স্ত্রী রিনা, ছেলে রাকিন ও সহযোগীরা গত ২১ জুন সকালে পেট্রোল ঢেলে আব্দুর রাজ্জাকের গায়ে আগুন লাগিয়ে দেয়। পরে ঢাকায় শেখ হাসিনা বার্ন ইনিস্টিউটে ভর্তি করা হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত ২৪ জুন মারা যায় আব্দুর রাজ্জাক। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের পর ৫ জন আসামীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকী ৩ আসামীকে গ্রেফতার করে হত্যাকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিতের দাবি জানান পরিবারের লোকজনসহ স্থানীয়রা। গোপালগঞ্জে পিকআপ ও বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে পিকআপের চালক সোহাগ মোল্যা (৩৫) নিহত হয়েছেন। এতে আহত হয়েছেন আরো ৫জন। আজ মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের সদর উপজেলার হরিদাসপুর ব্রীজে এ দূর্ঘটনা ঘটনা ঘটে। দূর্ঘটনার পর মহাসড়ক দিয়ে প্রায় দেড় ঘন্টা যান চলাচল বন্ধ থাকে। গোপালগঞ্জ সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শেখ মো: নাসির উদ্দিন জানান, একটি পিকআপ চন্দ্রদিঘলীয়া থেকে গোপালগঞ্জ শহরের যাচ্ছিল। এসময় ঢাকাগামী টুঙ্গিপাড়া এক্সপ্রেস-এর একটি যাত্রীবাহী বাস ঘটনাস্থলে পৌঁছালে পিকআপের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষ ঘটে। এতে পিকআপ ও বাসের সামনে অংশ দূমড়ে মুচড়ে গেলে পিকআপের চালক গুরুতর আহত হন। পরে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা তাকে উদ্ধার করে গোপালগঞ্জ ২৫০-শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন। এ দূর্ঘটনার পর প্রায় দেড় ঘন্টা ঢাকা-খুলনা মহাসড়ক দিয়ে যান চলাচল বন্ধ থাকে। দুই পাশে আটকা পড়ে শতাধিক যানবাহন। নিহত সোহাগ মোল্যা সদর উপজেলার চন্দ্রদিঘলীয়া চরপাড়া গ্রামের শহীদ মোল্যার ছেলে।