প্রশংসার জোয়ারে ভাসছেন অভিনেত্রী ভাবনা!

title
১০ দিন আগে
বিনোদন প্রতিবেদক : এ প্রজন্মের জনপ্রিয় অভিনেত্রী আশনা হাবিব ভাবনা। নাচ, উপস্থাপনা, মডেলিং ও অভিনয় দিয়ে দর্শকমন জয় করেছেন তিনি।এছাড়াও তিনি মুগ্ধতা ছড়িয়েছেন বড়পর্দায়। তার প্রথম সিনেমা ভয়ংকর সুন্দর মুক্তি পর বেশ প্রশংসিত হয় সারাদেশে। এই ছবিতে তার সঙ্গে জুটিহয়েছেন কলকাতার অভিনেতা পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়। নতুন খবর হচ্ছে, ইংল্যান্ডের ওয়েলসে অবস্থিত গ্লিন্ডউর ইউনিভার্সিটি থেকে ‘ব্যবসা ও বাণিজ্য’ বিষয়ে কৃতিত্বের সঙ্গে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেন ভাবনা।২০২১ সালের বছরের নভেম্বরে শেষ হয় গ্রাজুয়েশনের আনুষ্ঠিক কার্যক্রম। সম্প্রতি সমাবর্তন অনুষ্ঠানের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে তার হাতে সনদ তুলেদেওয়া হয়। লন্ডন ক্যাম্পাসে উপস্থিত থেকে সনদ নিয়েছেন তিনি। সামাজিকমাধ্যম ফেসবুকে কয়েকটি ছবি শেয়ার করে খবরটি নিশ্চিত করেছেন অভিনেত্রী ভাবনা। এরপর থেকেই বন্ধুশুভাকাঙক্ষী আর ভক্তদের প্রশংসায়ভাসছেন তিনি। এছাড়াও সামাজিকমাধ্যম ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন ভাবনা। তিনি লিখেছেন, ‘কেউ বিশ্বাস করুক আর নাকরুক নিজেকে বিশ্বাস করা সবচাইতেজরুরি। কেউ পাশে থাকুক না থাকুক নিজের পাশে নিজের থাকাটা জরুরি। খুবই জরুরি। আমার জীবনে আমি অনেকবার মাবাবাকে খুশি করতেপেরেছি। তবুও পরিবারের অন্যরা সব সময় আমার মাবাবাকে আমার পড়াশোনা নিয়ে একটু খোঁচা দিয়ে কথা বলতে ছাড়তো না। কারণ মেয়ে নাচ করে, অভিনয়করে, পড়াশোনা তো আমাকে দিয়ে হবেই না। আমার মাবাবা আমাকে জীবনে কোনদিন ক্লাসে ফার্স্ট হওয়ার জন্যে বলেনি। সব কিছুতেই আমার মাবাবাআমার পাশে ছিল। যত বার আমি হেরে যাই আম্মু আব্বু আমাকে সাহস দেয়।’ ভাবনা আরও লিখেছেন, ‘আমার লেখাপড়ার জার্নিটা একদম সোজা ছিল না, অনেক কাজ মিস হয়েছে, অনেক কঠিন হয়েছে স্পেশালি এই করোনারসময়, তবু ও আমি লেগে ছিলাম শুটিংয়ের সময় ও অনলাইনের ক্লাস মিস করিনি। আমার মাবাবা, আমার বোন যাদের কারণে আমার মনে হয়েছে পড়তেহবে। তবে আমি তাদেরকে বেশি করে ধন্যবাদ দিতে চাই, যারা আমাকে জাজ করে। যারা আমাকে ছোট করে কথা বলতে ভোলে না, যারা আমাকে টেনে ফেলে দিতে চায়, যাদের আমাকে দেখলে অনেক হাসি পায়, আমি সত্যি আপনাদেরবেশি ভালোবাসি। আপনাদের কারণেই আমি চলতে থাকি নিজের মতো করে, আমি শুধু এতটুকু বলব আমার লেখাপড়া কেবল শুরু। আরও অনেক কাজকরতে চাই। একটি দিনও আমি বসে থাকতে চাই না। আপনারা আমাকে আশীর্বাদ করবেন।’ উল্লেখ্য, অভিনয়ের বাইরে লেখক হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেছেন ভাবনা। এরই মধ্যে বেশ কটি বই প্রকাশিত হয়েছে তার। এগুলো হলো উপন্যাস‘গুলনেহার’, ‘তারা’, ‘গোলাপী জমিন’ এবং কবিতার বই ‘রাস্তার ধারের গাছটির কোনো ধর্ম ছিল না’।