পদ্মা সেতুর হ্যান্ডরেলিংয়ের কিছু কাজ বাকি ছিল: প্রকৌশলী

title
এক মাস আগে
হ্যান্ড রেলিংয়ের নাট খুলে গ্রেফতার হওয়া যুবক বায়েজিত তালহা। পদ্মা সেতুর নাট খুলে ফেলা যুবক বায়েজিদ তালহাকে এরই মধ্যে গ্রেফতার করেছে সিআইডি। তার বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা করা হয়েছে। সংশ্লিষ্টরা এ নিয়ে বলছেন, কোনোভাবেই পদ্মা সেতুর নাট হাত দিয়ে খোলা সম্ভব নয়। বায়েজিদ আগে প্লাস দিয়ে নাট খুলতে পারে বলেও জানানো হয়েছে। তবে এ নিয়ে একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। সেখানে পদ্মা সেতুতে কর্মরত কয়েকজন কর্মী জানান, এই সেতুতে টুকটাক ফিনিশিংয়ের কাজ বাকি ছিল। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পদ্মা সেতুর প্রকৌশলী দেওয়ান মো. আব্দুল কাদের। ভাইরাল হওয়া এই ভিডিওতে পদ্মা সেতুকে কয়েকজন নির্মাণশ্রমিককে দেখা যায়। তারা বলেন, নিচে ঢালাই হবে তো! এগুলো আমরা সম্পন্ন করতে পারিনি, ওগুলো করেছিলাম। আমাদেরকে বলছিল এভাবে রেখে যেতে, আমরা হালকা টাইট দিয়ে গেছি। আমরা এসে দেখি অনেকগুলো নাট খুলে নিয়ে গেছে, নয়তো ফেলে দিয়েছে। আমরা এসে লাগিয়েছি সকালে। এখন পিলারে পিলারে গাম লাগচ্ছি আর নাট টাইট দিচ্ছি। সব চেক চলছে। আরেকজন নির্মাণকর্মী বলেন, অনেকগুলো নাট খুলে ফেলেছে। আবার নতুন করে লাগাচ্ছি আমরা। এতটুকু জায়গায় দেখলাম, এইটুকু জায়গা থেকেই ৪০টা নাট খুলে ফেলে। তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, বাঙালি তো সবকিছু নিয়েই টিকটক করে, বাঙালি ভালো জিনিস পারবে কীভাবে। এখন পদ্মা সেতুর নাট নিয়েও টিকটক করা শুরু করেছে। ওনার উচিত শিক্ষা দেয়া উচিত, উনি যে ক্ষতি করেছে। এ নিয়ে যমুনা টেলিভিশনের কথা হয়েছে পদ্মা সেতুর নির্বাহী প্রকৌশলী (মূল সেতু) দেওয়ান মো. আব্দুল কাদেরের সাথে। তিনি জানান, আমাদের মূল সেতু যানচলাচলে যেসব কাজ ছিল সেগুলো শেষ। তবে হ্যান্ডরেলিংয়ের কিছু কাজ বাকি ছিল। সেসব হ্যান্ডরেলিং বসানো ও ঠিকঠাক করার কাজ আজ (২৭ জুন) চলছে। যেকোনো অবকাঠামোর ক্ষেত্রে ছোটখাটো কাজ থাকবেই। ঠিকাদার সব কাজ শেষ করে আমাদের সেতু বুঝিয়ে দিয়েছে। তবে আগামী একবছর ধরে তারা ডিফেক্ট লায়াবিলিটি পিরিয়ড এর কাজ করবে। এসব কাজ তারই অংশ। প্রসঙ্গত, পদ্মা সেতুর নাট খুলে টিকটক ভিডিও বানায় বায়েজিদ। সেই ভিডিও ভাইরাল হয় সোশ্যাল মিডিয়ায়। সেখানে নাট খুলে হাতে নিয়ে তাকে বলতে শোনা যায়, এই হলো আমাদের পদ্মা সেতু, হাজার হাজার কোটি টাকার পদ্মা সেতু। এরপরই রোববার বিকালে রাজধানীর শান্তিনগর এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। এ নিয়ে ব্রিফিং করেছে সিআইডি। সিআইডি ব্রিফিংয়ে জানিয়েছে, ওই যুবকের নামে বিশেষ ক্ষমতা আইনে একটি মামলা হয়েছে। তিনি ছাড়াও তার সহযোগী অজ্ঞাতনামা আরও কয়েকজনকে এ মামলায় অভিযুক্ত করা হয়েছে। এসজেড/