পীরগঞ্জে সংখ্যালঘুদের ঘরবাড়িতে অগ্নিসংযোগ, ভাংচুর-লুটপাট, ৫১ আসামীর জামিন নামঞ্জুর

title
২ মাস আগে
জয়নাল আবেদীন: রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলার মাঝিপাড়ায় সংখ্যালঘুদের ঘরবাড়িতে অগ্নিসংযোগ, ভাংচুর, লুটপাটের মামলায় ৫১ আসামীর জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত । দীর্ঘ ৯ মাস পর প্রধান আসামী শহিদ ওরফে শহিদুজ্জামান মন্ডলসহ ৫১ আসামী আদালতে আত্মসমর্পন করে জামিনের আবেদন করে।রোববার দুপুরে রংপুরের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত-১ এর বিচারক এসএম শফিকুল ইসলামের আদালতে তারা জামিন আবেদন করেন। আলোচিত এ ঘটনায় ২০২১ সালের ১৮ অক্টোবর পীরগঞ্জ থানার এসআই ইসমাইল হোসেন বাদী হয়ে ১শ৪৬ জনের নাম উল্লেখ করে মামলা দায়ের করেন। তদন্ত শেষে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই মাহবুব হোসেন সকল আসামীর বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশীট দাখিল করেন। মামলার প্রধান আসামী শহিদসহ শতাধিক আসামী দীর্ঘদিন ধরে পলাতক ছিলেন।রোববার দুপুরে তারা আদালতে আত্মসর্মপনের জন্য আবেদন জানান। শুনানী শেষে বিজ্ঞ বিচারক সকল আসামীর জামিন না মঞ্জুর করে তাদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।আসামী পক্ষের আইনজীবি ব্যারিস্টার আবু সাঈদ জানান, আসামীরা সকলেই সহায় সম্বলহীন ও তারা শ্রমজীবি। পুলিশ অন্যায়ভাবে মামলায় তাদের আসামী করেছে। এতে করে মানবেতর জীবন-যাপন করছে তাদের পরিবার।ফেসবুকে ধর্ম অবমাননাকর স্ট্যাটাস দেয়াকে কেন্দ্র করে ২০২১ সালের ১৭ অক্টোবর পীরগঞ্জের বড় করিমপুর কসবা মাঝিপাড়া ও দক্ষিণমাঝি পাড়ার সংখ্যালঘুদের বাড়িতে সন্ত্রাসীরা হামলা চালিয়ে অন্তত ৩০টি ঘরবাড়িতে অগ্নিসংযোগ, ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটায়। এ ঘটনায় আইসিটি আইনে ৩টি ও মাঝিপাড়ায় তান্ডবের ঘটনায় একটিসহ মোট ৪টি মামলা দায়ের করে পুলিশ। ঘটনার পর জড়িত থাকার সন্দেহে অন্তত ৫০ জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ।উল্লেখ্য ওই ঘটনার সময় পীরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিরোদা রানী রায় পীরগঞ্জ থানার ওসি সরেশ চন্দ্র রংপুর জেলার পুলিশ সুপার বিপ্লব কুমার সরকার এবং ডিআইজি রংপুর রেঞ্জের দায়িত্বে ছিলেন দেবদাস ভট্রাচার্য ।